শিরোনাম :

প্রচ্ছদ » সম্পাদকীয়

সিম নিবন্ধনে হয়রানি

শুক্র, ১২ ফেব্রুয়ারী'২০১৬, ১০:০৯ পূর্বাহ্ন


সিম নিবন্ধনে হয়রানি  
সিম নিবন্ধনে সরকারের তাগাদায় জনসাধারণের মধ্যে যথেষ্ট সাড়া মিললেও নিবন্ধনকাজ আশানুরূপ হচ্ছে না বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে। পত্রপত্রিকার খবরে এ ব্যাপারে জনহয়রানির ছবি তুলে ধরার পর টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী হয়রানি বন্ধে ভ্রাম্যমাণ টিম কাজ করছে বলে সংসদকে জানিয়েছেন। আশা করা যায়, মন্ত্রীর পদক্ষেপ গ্রহণের পর বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম রেজিস্ট্রেশনের কাজ সুচারুভাবে সম্পন্ন হবে।
বাংলাদেশে সরকারি-বেসরকারি যে কয়েকটি মোবাইল ফোন কোম্পানি কাজ করছে তারা সিম বিতরণে সরকারের নীতিমালা মেনে চলে বলে আমরা জানি। সুনির্দিষ্ট কাগজপত্র ছাড়া ফোন কোম্পানি কাউকে সিম বরাদ্দও করে না। তারপরও একসময়ের অব্যবস্থা দূর করতে সরকার সিম নিবন্ধনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। বলা যায়, সেভাবে দেশে চালু কোনো সিম অনিবন্ধিত থাকার কথা নয়। তারপরও কেন জনগণকে আবার নিজ দায়িত্বে সিম নিবন্ধন করতে হবে জনগণ সে প্রশ্ন করতে পারে।
তবে সরকারের সিদ্ধান্তকে যে জনগণ অস্বীকার করবে তা নয়। তবে কিছু খারাপ মানুষকে ধরতে বা নজরদারিতে আনতে কোটি কোটি গ্রাহককে ভোগান্তিতে ফেলাও সঙ্গত বলে আমরা মনে করি না। সরকার যদি বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন জরুরি মনে করে, তাহলে তা নতুন বরাদ্দকৃত সিম দিয়ে শুরু করতে পারে। আর সকল সিমকে এর আওতায় আনতে হলে জনগণকে নয়, সিম কোম্পানিকে জনগণের কাছে যাওয়ার ব্যবস্থা করা দরকার বলে আমরা মনে করি। 




এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন

close