শিরোনাম :

প্রচ্ছদ » সম্পাদকীয়

চার শিশু খুনঃ এই নৃশংসতা কেন? তার জবাব দেবে কে?

শুক্র, ১৯ ফেব্রুয়ারী'২০১৬, ৪:০৫ অপরাহ্ন


চার শিশু খুনঃ এই নৃশংসতা কেন? তার জবাব দেবে কে?  
হবিগঞ্জের বাহুবলে চার শিশুকে খুনের ঘটনায় সুন্দ্রাটিকি গ্রামে চলছে শোকের মাতম। সুনসান নীরবতা। পুরো গ্রাম নিস্তব্ধ। মাঝে মাঝে তা বিদীর্ণ করে সন্তান হারানো মায়ের আহাজারি। সান্ত্বনা দিতে ভিড় করেছে নিহতদের স্বজন। যাদের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ সেই সব বাড়িও পুরুষশূন্য। শোকের ছায়া পড়েছে সুন্দ্রাটিকি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও। সহপাঠীদের হারিয়ে নীরব অন্য শিশুরা। ছেলেধরার আতঙ্কে বেশিরভাগ শিশু স্কুলে আসেনি বৃহস্পতিবার। প্রতিদিন যেখানে চার থেকে সাড়ে চারশত শিক্ষার্থী স্কুলে আসত। এদিন সেখানে আসে মাত্র ত্রিশ-পঁয়ত্রিশজন।
অন্যদিনের মত শুক্রবার বিকেলে চার শিশু খেলছিল বাড়ির পাশের মাঠে। সন্ধ্যার পর ঘরে না ফেরায় তালাশ শুরু। আর মেলেনি তাদের সন্ধান। পাঁচ দিন পর বালি খুঁড়তে গিয়ে গ্রামবাসী চারজনের লাশের সন্ধান পায় বালির গর্তে।
লাশগুলোর ময়নাতদন্ত শেষে প্রমাণ হয়েছে এদের শ্বাসরোধ করে মারা হয়েছে। বিশেষ অভিযানে একই এলাকার কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। আদালত তাদের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেছে। আশা করা যায় এই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তারা শাস্তিও পাবে।
কিন্তু এই নৃশংসতা কেন? তার জবাব দেবে কে? সম্প্রতি আমাদের সমাজে এক ধরনের অস্থিরতা প্রবল হয়ে উঠেছে, তা না হয় সামাজিক বা রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের জন্য প্রযোজ্য হলো। তাই বলে অবুঝ শিশুর উপর। ধর্ম বা দেশের প্রচলিত আইনে যাদের বেকসুর করা হয়েছে। সেই শিশুদের উপরও প্রবল শক্তিতে ঝাঁপিয়ে পড়ছে এই সমাজেরই কিছু মানুষ।
শুধু শাস্তি দিয়ে এ থেকে পার পাওয়া যাবে বলে মনে করার কোন কারণ নেই। এ থেকে বাঁচতে হলে আমাদের অনুসন্ধান করা দরকার সমাজে এমন কি মৌলিক পরিবর্তন ঘটল যে মাসুম শিশুদেরও রেহাই দিচ্ছে না। সামান্য কারণে তাদের নির্যাতন করা হচ্ছে। করা হচ্ছে খুন।




এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন

close