শিরোনাম :

প্রচ্ছদ » অন্যান্ন

কল করলেই বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে যৌনসামগ্রী

মঙ্গল, ২৫ অক্টোবর'২০১৬, ১:২৪ পূর্বাহ্ন


কল করলেই বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে যৌনসামগ্রী  
কল করার আধা ঘণ্টা বা এক ঘণ্টার মধ্যে পিজ্জা বা অন্যান্য খাবার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার গ্যারান্টি মেলে। কিন্তু ভারতের গুরগাওয়ে একই পদ্ধতিতে মেলে জন্মবিরতিকরণ পণ্য। সেখানে কল করলেই বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয় কনডম।

মাসখানেক আগে নয়া দিল্লির দক্ষিণ-পশ্চিমের এই পুরনো শহরে এই সেবা চালু হয়। সেবার নাম ‘এসএমএস কন্ট্রাসেপটিভ’। এ শহরের যেকোনো স্থানে কল করার আধা ঘণ্টার মধ্যে পৌঁছে যাবে এসব সামগ্রী।

এসএমএস কন্ট্রাসেপটিভ প্রতিষ্ঠা করেছেন ১৮ বছর বয়সী তরুণ শিরহান শেঠ। হাসতে হাসতে বলেন, সবচেয়ে অদ্ভুত অর্ডার এসেছিল এক ভদ্রলোকের কাছ থেকে। তিনি ১০টি প্রেগনেন্সি টেস্টের অর্ডার করেন। কিন্তু ১০টি টেস্ট কেন? জানি না, হাসিমুখেই বলেন শিরহান। বুঝতে পারিনি বিষয়টি। বলতে থাকেন, লোকটি কেমন যেন ছিল! তিনি অর্ডারটি একটি মেট্রো স্টেশন থেকে সংগ্রহ করেন।

এসএমএস কন্ট্রাসেপটিভ সেবার আইডিয়াটি নিজেই বের করেন শিরহান। এর মাধ্যমে এসব পণ্য কেনার কাজটিকে তিনি সহজ করে দিয়েছেন। ক্রেতারা সহজেই কনডম, জরুরি জন্মবিরতিকরণ পিল, লুব্রিকেন্ট এবং প্রেগনেন্সি টেস্টের উপকরণ কিনতে পারেন। ফার্মেসিতে গিয়ে এসব কেনা অনেকের জন্য অস্বস্তিকর। শুধুমাত্র এ কারণেই অনেকে প্রয়োজন সত্ত্বেও তা ব্যবহার করেন না। বিশেষ করে নারীদের জন্য ফার্মেসিতে গিয়ে সবার সামনে আই-পিল কেনাটা লজ্জার বিষয়। যেমন ওই লোকটি। তিনি প্রেগনেন্সি টেস্ট কিট নিতে একটি মেট্রো রেলে চলে আসেন।

তরুণ উদ্যোক্তা হিসাবে ভিন্ন এক ব্যবসা প্রতিষ্ঠা করেছেন শিরহান। রাষ্ট্রবিজ্ঞান ও ব্যবসা নিয়ে ডাবল মেজর করছেন। সোনপাতের ওপি জিনডাল ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা করছেন। এই ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ততা ও পড়াশোনা নিয়ে বেশ পেরেশানিতে তিনি। তার পণ্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি অর্ডার হয় ‘সেফ বেট’ এর। এটি একটি কম্বো অফার যাতে রয়েছে তিনটি কনডম এবং একটি লুব্রিকেন্ট। সপ্তাহের শেষ দিনটিতে ৪-৫টি অর্ডার মেলে।

যারা কল করেন, তারা খুব বেশি কথা বলেন না। সরাসরি যা চাই তাই চেয়ে ফোন রেখে দেন। দিনের যেকোনো সময় কল চলে আসে। তবে রাতেও আসে। সাধারণত রাত ৯টার আগ দিয়ে খুব বেশি কল আসতে থাকে। এ সময়টাতে রাতের বিভিন্ন পার্টি থেকে বেরিয়ে আসে মানুষ। তখন এ ধরনের পণ্য দোকানে গিয়ে কেনা সম্ভব হয় না, জানালেন শিরহান।

এই মুহূর্তে তার মূল ক্রেতা গুরগাওকেন্দ্রিক। তাদের জন্যেই এই সেবা যারা বাড়িতে বসে উন্নতমানের পণ্য কিনতে চান। তবে তার কাছে ভারতের অন্যান্য শহর থেকেও কল আসে। শিরহানের মতে, তার এই ব্যবসা আমেরিকায় চলবে না। কারণ সেখান এসব পণ্য কেনাটা কোনো ব্যাপার না। কিন্তু এদিকের মানুষ এগুলো অন্যদের সামনে কিনতে অস্বস্তিবোধ করেন। আর সেখানেই প্রয়োজন এসএমএস কন্ট্রাসেপটিভ।




এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন

close