শিরোনাম :

প্রচ্ছদ » জাতীয়

অর্থের কাছে নৈতিকতার হার

শনি, ১৫ অগাস্ট'২০১৫, ৩:৩০ অপরাহ্ন


অর্থের কাছে নৈতিকতার হার  

বর্তমান সমাজে তারকা আর স্ক্যান্ডাল দুইটি একে অপরের পরিপূরক শব্দে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিনই কোন না কোন তারকাদের স্ক্যান্ডালের মুখরোচক খবর ছাপা হচ্ছে সংবাদ মাধ্যমগুলোতে। তার কতগুলো হয়তো বা সত্যি আর কতগুলো হয়তো বা শুধুমাত্র কারো শত্রুতার জেরে কারো চরিত্র হরনের জন্যই করা হচ্ছে। বিভিন্ন অনলাইনে এসব তারকাদের নিয়ে বিভ্রান্তমূলক শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করে যা দেশের বিনোদন অঙ্গনে বিড়ম্বনা তৈরি করছে। সংবাদ২৪.নেট এসব সংবাদের নিয়িমতই প্রতিবাদ করে আসছে। আমরা দুঃখিত মীম, তিশা, আঁখি আলমগীরসহ সেসকল তারকাদের কাছে। এসব বিভ্রান্ত করছে নাম দারি কিছু অনলাইন গণমাধ্যম যার কারণে প্রতিনিয়ত প্রতিহিংসার স্বীকার দেশের তারকারা।

এরজন্য ব্যবহার করা হচ্ছে বিভিন্ন ‘লুক এলাইক’ ভিডিও বা ছবি। ইন্টারনেটের অপব্যবহার করে খুব সহজেই মিলছে তারকাদের চেহারা সাদৃশ্য বা কাছাকাছি কারো ভিডিও বা ছবি। আর তারপরেই সেইসব ছবি বা ভিডিও ব্যবহার করে বানানো হচ্ছে কিছু মনগড়া কাহিনী বা গপ্পো, আর তাতেই বাজিমাত হয়ে যায় । তবে কি লাক্সতারকা মেহজাবিন, অভিনেত্রী তিশার পর এবার সেইরকম এক প্রতিহিংসার শিকার হলেন গায়িকা আঁখি আলমগীর?

যেসব শিরোনামে এসব সংবাদ প্রকাশ করা হয় ‘সানি লিওনকেও হার মানানো ১৮ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডের পর্নো’ ভিডিওটি আঁখির জ্ঞাতসারেই করা হয়েছে-এটি বুঝা যায় শুরুতে ক্যামেরার দিকে তাকিয়ে টা টা করতে দেখে। এরপরেই খবরটিতে পর্নো ভিডিওর সকল খুঁটিনাঁটি সম্পর্কে রগরগে কিছু বর্ননা দেওয়া হয়েছে।

তবে দাবী করা হয়েছে ভিডিওটি প্রকৃতপক্ষে আঁখি আলমগীরের নয়। বর্তমানে ইউটিউব থেকে ভিডিওটি মুছে দেয়া হয়েছে।

আবার অনেক নামি দামি অনলাইন ‘সানি লিওন ও প্রভাকেও হার মানালেন আঁখি আলমগীর’ এমন শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করছে।

আবার ‘আখিঁ আলমগীর যখন যৌন তৃপ্তিতে মশগুল’ এসব শিরোনাম দিয়ে পাঠকদের আকর্ষন তৈরি করে যা মূলত বিভ্রান্ত ছাড়া আর কিছুই নয়।





এ বিভাগের আরো সংবাদ

মন্তব্য করুন

close